ঢাকা, শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
HTML tutorial

ভারতীয় পর্যবেক্ষক ধর্মেন্দ্র শর্মা টাঙ্গাইল দক্ষিণ পাথালিয়া ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করার সাথে ঘুরে দেখলেন 201 গুম্বুজ মসজিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ০৩:১২ এএম

ভারতীয় পর্যবেক্ষক ধর্মেন্দ্র শর্মা টাঙ্গাইল দক্ষিণ পাথালিয়া ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করার সাথে ঘুরে দেখলেন 201 গুম্বুজ মসজিদ

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছেন ভারতের পর্যবেক্ষক দলের প্রধান ধর্মেন্দ্র শর্মা। তিনি ভারতের নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র ডেপুটি কমিশনার। রোববার (৭ জানুয়ারি) ১২ টায় টাঙ্গাইল-২ আসনের গোপালপুর উপজেলার দক্ষিণ পাথালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর কেন্দ্র পরিদর্শন করেন তিনি।এ সময় তিনি ভোটকক্ষে প্রবেশ করে ভোটের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেন এবং প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন।

এর আগে কেন্দ্রে প্রবেশ করার পূর্বে প্রথমে দক্ষিণ পাথালিয়া 201 গম্বুজ  মসজিদ পরিদর্শন করেন সাথে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে ছবি তুলেন।

 

ইসির দেওয়া তথ্যমতে, নির্বাচন ঘিরে সারাদেশে পাঁচ লাখ ১৬ হাজার আনসার, এক লাখ ৮২ হাজার ৯১ পুলিশ, ৪৬ হাজার ৮৭৬ বিজিবি, দুই হাজার ৩৫০ কোস্টগার্ড এবং ৭০০ এর বেশি র‌্যাব টহলে থাকবে। তাদের সঙ্গে ভোটের মাঠে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী। এ ছাড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যরাও মাঠে থাকবে। প্রতিকেন্দ্রে থাকবেন ১৫ থেকে ১৭ জন নিরাপত্তা সদস্য।

 

এবার নির্বাচনে মোট ভোটার ১১ কোটি ৯৭ লাখ। এর মধ্যে ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন পুরুষ, ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন নারী এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটারের সংখ্যা ৮৫২। মোট ভোটকেন্দ্র ৪২ হাজার ১০৩টি। ভোটকক্ষ ২ লাখ ৬১ হাজার ৯১২টি। ভোট হচ্ছে ব্যালট পেপারে।

 

এবারের নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্যে ভোট হবে ২৯৯ আসনে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে নওগাঁ-২ আসনের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। নির্বাচনে ২৮টি দল অংশগ্রহণ করেছে। এর মধ্যে দলীয় প্রার্থী ১ হাজার ৫৩৪ জন এবং স্বতন্ত্র ৪৩৬ জন। নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ২৬৬ জন প্রার্থী দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এ ছাড়া দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬৫ জন প্রার্থী দিয়েছে জাতীয় পার্টি এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৩৫ জন প্রার্থী রয়েছেন ‘সোনালী আঁশ’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে আসা তৃণমূল বিএনপি।

 

এদিকে বিএনপিসহ ৬০টি দল নির্বাচন বর্জন করেছে। দলটি সরকার পতনের এক দফা দাবিতে দীর্ঘদিন আন্দোলন করে সফলতা না পেয়ে নির্বাচনের দুই মাস আগ থেকে হরতাল-অবরোধের পথ বেছে নেয়। এতে সরকারকে চাপে ফেলতে না পেরে ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে গত ২০ ডিসেম্বর ‘অসহযোগ আন্দোলনের’ ডাক দেয় দলটি। পাশাপাশি সরকারকে সকল প্রকার কর, খাজনা, পানি, গ্যাস এবং বিদ্যুৎ বিল দেওয়া স্থগিত রাখার অনুরোধ জানায় দলটি।

alo